১০ ই জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ——–এড, সাইফুজ্জামান শিখর

অন্যান্য এইমাত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ পাকিস্তানিদের পরাজয়ের ঠিক আগের রাতে জেলের মধ্যে দাঙ্গা লাগিয়ে হত্যার শেষ অপচেষ্টা করা হয় স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধুকে।


বিজ্ঞাপন

কিন্তু আন্তর্জাতিক চাপের কারণে তা আর বাস্তবায়ন করতে পারেনি পাকিস্তানি জান্তারা। অবশেষে ১৯৭২ সালের ৮ জানুয়ারি তাকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয় পাকিস্তানিরা।


বিজ্ঞাপন

৯ জানুয়ারি লন্ডন হয়ে, ১০ জানুয়ারি নিজের সৃষ্ট দেশে প্রত্যাবর্তন করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

সেই বৃষ্টিস্নাত বিকালে, বঙ্গবন্ধুকে বহনকারী বিমানটি যখন তেজগাঁও বিমানবন্দরের রানওয়ে স্পর্শ করে, তখন ঢাকার রাস্তায় আনন্দঅশ্রুতে মথিত হতে থাকে লাখ লাখ জনতা। তাকে একনজর দেখেই যেনো হাফ ছেড়ে বাঁচে বাঙালি জাতি, ফিরে এসেছেন জাতির পিতা।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগানে প্রকম্পিত হতে থাকে চারপাশ। বিমান থেকে নেমে বঙ্গবন্ধু সরাসরি চলে যান সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে।

এরপর নতুন করে দেশকে গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন আবেগী অথচ আত্মবিশ্বাসী কণ্ঠে। বঙ্গবন্ধুর মুখে দিকে তাকিয়ে, তার কণ্ঠের মূর্চ্ছনায়, আবেশিত হয়ে যায় পুরো বাংলাদেশ।

প্রতিটি বাঙালির হৃদয় পরিণত হয় পুষ্পবৃষ্টির ফেনিল সায়রে। বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা এবং মুক্তিযোদ্ধাদের বীরোচিত বিজয় পূর্ণতা লাভ করে এই ঐতিহাসিক প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে। ১৬ ডিসেম্বর যুদ্ধে বিজয় লাভ হলেও, ১০ জানুয়ারি তা পরিপূর্ণতা পায়।

১০ই জানুয়ারি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে তার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাই।