এটিএম বুথ জালিয়াতি

অপরাধ আইন ও আদালত এইমাত্র

রিমান্ডে ৬ বিদেশি
নিজস্ব প্রতিবেদক : ডাচ-বাংলা ব্যাংকের অটোমেটেড টেলার মেশিনের (এটিএম) বুথের সিস্টেম হ্যাক করে টাকা তুলতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়েছেন ইউক্রেনের ছয় নাগরিক। গ্রেপ্তারকৃতদে আদালতে হাজির করা হলে, ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম তাদের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

গোয়েন্দাদের দাবি, বিশেষ এক ধরনের এটিএম কার্ড ব্যবহার করে পিন ছাড়াই অভিনব কায়দায় টাকা তুলত এই চক্রটি। এর কোনো রেকর্ড ব্যাংকের সার্ভারে থাকত না, কোনো গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকেও টাকা কাটা যেত না।

গ্রেপ্তারকৃত ইউক্রেনের ছয় নাগরিক হলেন— ভ্যালেনটাইন (পাসপোর্ট নম্বর ইওয়াই ০৫১৫৬২), ওলেগ (পাসপোর্ট নম্বর ইএক্স ০৮৯৯৬৩), ড্যানিশ (পাসপোর্ট নম্বর এফএল ০১৯৮৩৪), নাজেরি (পাসপোর্ট নম্বর এফটি ৫০০৫০১), সার্গি (পাসপোর্ট নম্বর এফএইচ ৪২৪৩৯৪) ও ভোলোবিহাইন (পাসপোর্ট এফটি ৩৭৯৯৮৩)।

আদালতকে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) এক প্রতিবেদন বলা হয়েছে, সংঘবদ্ধ ডিজিটাল জালিয়াত চক্রের সদস্যরা খিলগাঁওয়ের তালতলা মার্কেটের সামনের ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথের সিস্টেম হ্যাক করেন। জালিয়াতির মাধ্যমে ওই বুথ থেকে টাকা তোলার সময় জনসাধারণের সহযোগিতায় একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাকে সঙ্গে নিয়ে হোটেল ওলিও ড্রিম হ্যাভেন থেকে বাকি পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় প্রাথমিক তদন্তে জানা যায়, এই ছয় আসামি সংঘবদ্ধ আন্তর্জাতিক জালিয়াত চক্রের সদস্য। তাঁরা অভিনব পদ্ধতি অবলম্বন করে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথের সিস্টেম হ্যাক করেন। ডিজিটাল জালিয়াতির মাধ্যমে টাকা তোলার জন্য এই আসামিরা বাংলাদেশে এসেছেন।

জালিয়াতির এই ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটনের জন্য আসামিদের আট দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আবেদন জানায় ডিবি।

এর আগে, গতকাল রোববার (২ জুন) জালিয়াতির মাধ্যমে এটিএম বুথ থেকে টাকা তোলার অভিযোগে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের ডেলিভারি চ্যানেলের হেড অব অলটারনেট মশিউর রহমান বাদী হয়ে খিলগাঁও থানায় মামলা করেন। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এই মামলা করা হয়।

মামলার এজাহারে মশিউর বলেন, সংঘবদ্ধ ডিজিটাল জালিয়াত চক্রটি খিলগাঁও তালতলা মার্কেটের সামনের ডাচ্‌-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথসহ আমাদের অন্যান্য বুথ থেকে ডিজিটাল জালিয়াতির মাধ্যমে ডাচ্‌-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথের টাকা উত্তোলন করছে।

গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ব্যাংকটির বাড্ডা বুথের দুটি এটিএম বুথ থেকে দুই বিদেশি নাগরিক বিভিন্ন কার্ড ব্যবহার করে একাধিকবার টাকা উত্তোলন করেন। বুথ থেকে একজন বের হয়ে আবারও টাকা তোলেন। এ সময় বুথে নিরাপত্তাকর্মীরাও উপস্থিতি ছিলেন। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, টাকা উত্তোলনের সময় মাস্ক দিয়ে মুখ ঢাকার চেষ্টা করেছেন তারা, চোখে ছিল সানগ্লাস, মাথায় ছিল টুপি।

জানা গেছে, গত শনিবার সকালে বাড্ডার এটিএম বুথের টাকার হিসাব মেলানোর সময় তিন লাখ টাকা কম হয়। ওই এটিএমের দায়িত্বে ছিলেন ওরনেট গ্রুপের নিরাপত্তাকর্মী। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ দুই বিদেশি কর্তৃক টাকা উত্তোলনের বিষয়টি নিশ্চিত হয়। এরপর সব এটিএম বুথে নিরাপত্তা বাড়ায় ডাচ্-বাংলা ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। শনিবার রাতেই খিলগাঁওয়ের তালতলা এলাকায় ডাচ্-বাংলার এটিএমে টাকা চুরি করতে গেলে দুই বিদেশির একজন ধরা পড়েন। পরে আরও পাঁচ বিদেশিকে আটক করে পুলিশ।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (পূর্ব) খিলগাঁও অঞ্চলের অতিরিক্ত উপকমিশনার শাহিদুর রহমান বলেন, তাদের কাছে যে কার্ডগুলো পাওয়া গেছে, সেগুলো এটিএম বুথে ঢোকানোর সঙ্গে সঙ্গেই ব্যাংকের কেন্দ্রীয় সার্ভারের সঙ্গে ওই বুথের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এরপর তারা নিজেদের মতো করে টাকা তুলে নিয়ে যান। এটি সম্পূর্ণ নতুন ও অভিনব পদ্ধতি।


Leave a Reply

Your email address will not be published.