টাকা ভাগাভাগির জেরে সাতক্ষীরার ভাঙ্গাড়ি ব্যাবসায়ী লিটনকে খুন করলো নড়াইল লোহাগড়ার আরের ভাঙ্গাড়ি ব্যাবসায়ী জাকির 

Uncategorized অপরাধ আইন ও আদালত খুলনা বিশেষ প্রতিবেদন সারাদেশ

মো: রফিকুল ইসলাম (নড়াইল) : ভাঙ্গাড়ি  সামগ্রীর বিক্রির টাকা ভাগাভাগি নিয়ে সাতক্ষীরার লিটন খুনের ঘটনায় দ্রুততম  সময়ের মধ্যে প্রধান আসামি নড়াইল লোহাগড়ার জাকির কে  গ্রেফতার করলো লোহাগড়া থানা পুলিশ,  এ খবর সংশ্লিষ্ট সুত্রের।


বিজ্ঞাপন

জানা গেছে,  ভাঙ্গারি বিক্রির টাকা ভাগাভাগি নিয়ে লিটন হোসেন (৪১) নামের এক ব্যক্তি চলতি বছরের  ২৯ আগস্ট  হতে ১ সেপ্টেম্বর  ৬ টা ৫ মিনিটের  মধ্যে যেকোন সময় হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়। তিনি সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ থানার নিজদেবপুর গ্রামের মুজিবর রহমান ঢালীর ছেলে। ঘটনার দিন আসামি জাকির হোসেন মোল্যা ও খুনের শিকার  লিটন হোসেনের মধ্যে ভাঙ্গারি বিক্রির ৭০০-১০০০ টাকা ভাগাভাগি নিয়ে মনোমালিন্য সৃষ্টি হয়।

এর জেরে লোহাগড়া পৌরসভাধীন ৭ নং ওয়ার্ডের জনৈক মোঃ মোস্তফা শেখ, পিতা-মৃত ইসাহাক শেখ এর তিনতলা ভবনের নিচে নবগঙ্গা নদীর দক্ষিণপাড়ে তারাট অবস্থানকালে দুজনের মাঝে বাক বিতন্ডের সৃষ্টি হয়।

বাক বিতন্ডের একপর্যায়ে আসামী মোঃ জাকির হোসেন মোল্যা (২৫), পিতা: মো: আলাউদ্দিন মোল্যা, গ্রাম- রামপুর, থানা- লোহাগড়া, জেলা- নড়াইল লিটনের  মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করে এবং মৃত্যু নিশ্চিত করতে আসামীর কাছে থাকা চাকু দিয়ে লিটন কে পেটে গুরুতর জখম করলে উক্ত স্থানেই লিটন হোসেন মৃত্যুবরণ করে। মৃত লিটনকে ঘটনাস্থলে রেখে আসামী চলে যায় এবং গত ২  সেপ্টেম্বর  স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লিটনের মৃতদেহ উদ্ধার করে।

স্থানীয় মেম্বার এর মাধ্যমে পুলিশ মৃতের পরিবারকে খবর দিলে তার পিতা-মাতা এসে সন্তানের পরিচয় সনাক্ত করে এবং লোহাগড়া থানায় এজাহার দায়ের করলে একটি হত্যা মামলার রুজু হয়। নড়াইল জেলার পুলিশ সুপার  মোসাঃ সাদিরা খাতুন এর নির্দেশনায় লোহাগাড়া থানা পুলিশ মামলার রহস্য উদঘাটনে তৎপর হয়।

গত বৃহস্পতিবার ১৪ সেপ্টেম্বর রাতে লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ  মো: নাসির উদ্দিনের নেতৃত্বে তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মোহাম্মদ মামুনুর রহমানসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ভিডিও ফুটেজ বিশ্লেষণ করে উক্ত হত্যা মামলার মূল আসামী মোঃ জাকির হোসেন মোল্যাকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

শুক্রবার  ১৫ সেপ্টেম্বর, আসামি মোঃ জাকির হোসেন মোল্যাকে আদালতে প্রেরণ করলে আসামি ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করে। আসামির নামে লোহাগড়া থানায় পূর্বের একটি মামলা চলমান আছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *